সদ্য বিজয়ী বাইডেনকে ‘গজনি’ ছবির আমিরের সঙ্গে তুলনা কঙ্গনার!

সদ্য বিজয়ী বাইডেনকে ‘গজনি’ ছবির আমিরের সঙ্গে তুলনা কঙ্গনার!

বিনোদন জগৎ

হোয়াইট হাউস হাতছাড়া ডোনাল্ড ট্রাম্পের। সমস্ত জল্পনার অবসান ঘটিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের নির্বাচিত প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। গোটা বিশ্ব পরবর্তী মার্কিন প্রেসিডেন্টকে শুভেচ্ছা জানাচ্ছে। কিন্তু এসবের মাঝেই বাইডেনকে নিয়ে কঙ্গনার একটি টুইট রীতিমতো অবাক করেছে নেটিজেনদের। ৭৮ বছর বয়সি পরবর্তী প্রেসিডেন্টকে ‘গজনি’ ছবির আমির খানের সঙ্গে তুলনা করেছেন অভিনেত্রী! 

২০০৮ সালে মুক্তি পেয়েছিল আমির খান অভিনীত ‘গজনি’। বক্স অফিসে রীতিমতো ঝড় তুলেছিল সেই সিনেমা। সেখানে একজন বিজনেস টাইকুনের ভূমিকায় দেখা গিয়েছিল আমির খানকে। যার একটি দুর্ঘটনার পর স্মৃতিশক্তি দুর্বল হয়ে গিয়েছিল। অল্প সময়ের মধ্যেই আগের কথা ভুলে যেত সে। সেই ‘গজনি’র সঙ্গেই জো বাইডেনের তুলনা টানলেন বলিউডের কন্ট্রোভার্সি কুইন। বিষয়টা তাহলে একটু খুলে বলা যাক।জো বাইডেন নির্বাচিত প্রেসিডেন্ট হতেই কমলা হ্যারিস হয়ে যান প্রথম নির্বাচিত মার্কিন ভাইস-প্রেসিডেন্ট। জয়ের পর জাতির উদ্দেশে ভাষণ দেন উচ্ছ্বসিত ভারতীয় বংশোদ্ভূত কমলা। সেখানেই তিনি বলেন, “আমি এই অফিসের প্রথম নারী হতে পারি। কিন্তু শেষ নই। কারণ যে সমস্ত খুদে মেয়েরা এই মুহূর্তের সাক্ষী থাকছে, তারা জানবে যে এই দেশে কোনও সম্ভাবনাই উড়িয়ে দেওয়া যায় না। সবকিছুই সম্ভব।” 

হ্যারিসের সেই বক্তব্যের ভিডিওটি শেয়ার করে তাকে অভিনন্দন জানিয়েছেন কঙ্গনা রানাওয়াত। তাই সেই প্রসঙ্গেই বাইডেনকে ‘গজনি’ বলে সম্বোধন করেছেন। লিখেছেন, গজনি বাইডেনের ডাটা প্রতি পাঁচ মিনিটেই ক্র্যাশ করে যায়। যা ওষধুই দেওয়া হোক, এক বছরের বেশি টিকবে না। তাই খুবই স্পষ্ট যে কমলা হ্যারিসই এই শো’টা চালাবেন। একজন নারী মাথাচাড়া দিলে, তিনি অন্যদেরও টেনে তুলতে সাহায্য করেন। এই ঐতিহাসিক দিনের জন্য অনেক অভিনন্দন।”

কঙ্গনার এমন তুলনায় বেশ বিস্মিত অনেক নেটিজেনই। অনেকে আবার বলছেন, এমনটা লেখা কঙ্গনার পক্ষেই সম্ভব। তবে এটা ঠিক যে, সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যু তদন্ত বা নেপোটিজম বা মিটু মুভমেন্ট হোক, কিংবা মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচন- সর্বদা শিরোনামে সেই কঙ্গনাই। সূত্র : সংবাদ প্রতিদিন।